অতিশিগ্রই ষড়যন্ত্রকারী ১১ জনের নাম প্রকাশ – সৈয়দ আলমাস কবীর

গত ২৭ তারিখ বেসিস কার্যালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে নোটিস আসে ৩১ মার্চ হতে যাওয়া বেসিস নির্বাচন ২০১৮ বন্ধ করার। নির্বাচন বানচাল কে একটি ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেন বেসিস সদস্য এবং বর্তমান নির্বাচনের প্রার্থীরা। বেসিসের ১১ জন সদস্যের আবেদনের প্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয় সম্প্রতি এ নির্দেশনা দেয়। পরবর্তীতে নোটিস বাতিল করে নির্বাচন করার আদেশ দেওয়া হলেও ঐ ১১ জনের নাম প্রকাশ হয়নি।

বেসিস এর বর্তমান প্রেসিডেন্ট সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন অনেকে অভিযোগ আনে, আমি কেন ঐ ১১ জনের নাম প্রকাশ করছি না। ভাই, আপনার মত আমিও ঐ কুচক্রীদের নাম জানতে আগ্রহী। ডিটিও-কে আমি সচিবালয়ে বসে যখন এই অনুরোধ জানাই, তিনি বলেন অফিশিয়ালি আবেদন করতে। সে অনুযায়ী অফিশিয়াল আবেদন পাঠানো হয়েছে, এবং যেহেতু আমি বলেছিলাম যে অনতিবিলম্বে তা’দের নাম প্রকাশ করা হবে, সেহেতু সব সদস্যবৃন্দকে ই-মেল দিয়ে জানানো হয়েছে এই আবেদনের কথা। জানি, অনেকে বলবেন “আমাকে বললেই তো আমি দু মিনিটে নামের লিস্ট বের করে আনতে পারতাম”। তো ভাই, আনেন না! আমিও তো উদ্গ্রীব!

এখন কথা হলো, একটি নাম তো আমরা জানিই। তারপরও বলা হচ্ছে যে, তা’র বৃত্তান্ত প্রকাশ করতে। সবার জানা প্রয়োজন, নির্বাচনকালে সকল ভোটারের ফাইল নির্বাচন কমিশনের জিম্মায় থাকে। তা’ছাড়া কোন সদস্যের সকল বৃত্তান্ত তো পাবলিকলি প্রকাশ করা সমীচিন হয় না। তবে আমি আবারও বলছি, এই ১১ জনের নাম-ঠিকানা পাওয়ার সাথে সাথে প্রকাশ করা হবে, এবং তা’দের ব্যাপারে তদন্ত-কমিটি গঠন করে সংঘবিধি অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা অবিলম্বে নেওয়া হবে।

আসলে যাদের অসৎ উদ্দেশ্য থাকে, তারা কখনই অন্যের কোন সৎ উদ্দ্যোগকে ভাল চোখে দেখতে পারে না। তারা বুঝে-শুঝেই মিথ্যা অমূলক অভিযোগ করতে থাকে। কিন্ত যাদের কাছে অভিযোগ, তাঁরা তো আর অবুঝ শিশু নন! তাঁরা যথেষ্ট বুদ্ধিমান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.